গোপালগঞ্জে খবর

গোপালগঞ্জে খবর
April 06 15:08 2017 Print This Article

গোপালগঞ্জে কলেজ ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে গোবিন্দ বৈরাগী নামে এক কলেজ ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জ শহরের নিচুপাড়া আমেনা স্কুলের পাশে একটি গাছ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সে কোটালীপাড়া উপজেলার পোলসাইর গ্রামের সন্তোষ বৈরাগীর ছেলে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সেলিম রেজা জানান, সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের দর্শন বিষয়ে অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র গোবিন্দ বৈরাগীর লাশ স্থানীয় লোকজন দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

সে গোপালগঞ্জ শহরের একটি ছাত্র মেসে থেকে লেখা পড়া করতো। লাশের ময়না তদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে বলেও তিনি জানান।

গোপালগঞ্জে এক ভুয়া সাংবাদিকের কারাদন্ড

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে এইচ এস সি পরীক্ষার হল থেকে আটক অভিজিৎ ঢালী (৩০) নামের এক ভুয়া সাংবাদিককে এক বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: মাহবুব জামিল ও মো: সাখাওয়াৎ হোসেন এ সাজা দেন। তার বাড়ি বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার দিয়াপাড়া গ্রামে।

গোপালগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর অশোক কুমার সরকার জানান, গত ২ এপ্রিল পরীক্ষা শুরুর দিনে নিজেকে বাংলাদেশ প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া এ্যাসোসিয়েশনের গোপালগঞ্জ জেলার দায়িত্বরত সিইও হিসেবে পরিচয় দেন ওই যুবক। এরপর বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে অসদাচরণ এবং শিক্ষার্থীদের খাতা নিয়ে টানাটানি করেন। এতে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় ব্যাঘাত ঘটে। বিষয়টি সন্দেহ হলে বৃহস্পতিবার তিনি পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢোকার পর তাকে গেইট থেকে আটক করে লাইব্রেরিতে নিয়ে আসা হয়। পরে তাকে হলে কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। তারা ওই সাংবাদিককে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তার দেওয়া তথ্য ও কথাবার্তা অসংলগ্ন হওয়ায় আমাদের সন্দেহ হয়।

পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্ব প্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: মাহবুব জামিল ও মো: সাখাওয়াত হোসেন বাংলাদেশ প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশন নামের ওই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তারা অভিজিৎ ঢালী নামের কোনো সাংবাদিক নেই বলে নিশ্চিত করেন। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ওই ভুয়া সাংবাদিককে এক বছরের সাজা প্রদান করে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

টুংগীপাড়ায় ইয়াবা ব্যবসায়ী গ্রেফতার

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জ জেলার টুংগীপাড়া উপজেলার পাটগাতী বাজার থেকে বুধবার রাতে পুলিশ ২ ইয়াবা ব্যাবসায়ীকে গ্রেফতার করে তারা হলেন, সেকেন বিশ্বাসের ছেলে রমজান আলী বিশ্বাস ও বিমল বিশ্বাসের ছেলে অভিজিত বিশ্বাস।

টুংগীপাড়া থানার এস আই মজিবুর রহমান বলেন,রমজান আলী বিশ্বাস একজন মাদক স¤্রাট। সে দীর্ঘ দিন যাবত ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত ও পুলিশের তালিকায় সে টপ লিস্টে ছিল।  এছাড়াও অভিজিত বিশ্বাসের কাছ থেকে ১১ পিচ ইয়াবা পাওয়া যায়। এ সময় পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর জাতীয় কমিটি’র সুধী সমাবেশ

২০ এপ্রিল সুন্দরবন উপকূলীয় মানুষের মহাসমাবেশ সফলের লক্ষ্যে আজ ৬ এপ্রিল বিকেল ৪টায় তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি খুলনা জেলা কমিটির উদ্যোগে নগরীর উমেশ চন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে জেলা আহ্বায়ক ডাঃ মনোজ দাসের সভাপতিত্বে এক সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সদস্য সচিব মোস্তফা খালিদ খসরুর সঞ্চালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় কমিটির কেন্ত্রীয় সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।

সমাবেশে অন্যান্য অতিথির মধ্যের বক্তব্য রাখেনÑবীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. এনায়েত আলী, এ্যাড. আ ফ ম মহসীন, খুলনা উন্নয়ন ফোরাম সদস্য সচিব এম এ কাশেম, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব এ্যাড. বাবুল হাওলাদার। আরও বক্তব্য রাখেনÑসিপিবি’র কেন্দ্রীয় সদস্য এস এ রশিদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. রুহুল আমিন, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য মনিরুল হক বাচ্চু, গণসংহতি আন্দোলন জেলা আহ্বায়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ জেলা সম্পাদক ডাঃ সমারেশ রায়, বাসদ জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টু, বাসদ (মার্কসবাদী)

জেলা সংগঠক রুহুল আমীন, সিপিবি নগর সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সদস্য গোলাম মোস্তফা, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ জেলা সদস্য কাজী দেলোয়ার হোসেন, আনিসুর রহমান মিঠু, বাসদ (মার্কসবাদী) জেলা সদস্য সুজয় চৌধুরী সাম্য, গনসংহতি আন্দোলন জেলা সদস্য কৃষ্ণ সরকার, মোঃ আলামিন শেখ প্রমুখ।

সমাবেশ প্রধান অতিথি আনু মুহাম্মদ বলেন, সকল বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ থেকে নিশ্চিত হয়েছে যে, রামপাল প্রকল্পসহ সুন্দরবন বিনাশী অপতৎপরতায় পুরা বাংলাদেশই অরক্ষিত হবে, ভয়াবহ মাত্রায় বিপদাপন্ন হবে। তবে বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, খুলনা, বরগুনা, পিরোজপুর, ঝালকাঠী, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশালসহ উপকূলীয় জেলাগুলোতে ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। এ ক্ষতি পানী ও বায়ু দূষণের মাধ্যমে, প্রকৃতিক দুর্যোগ তীব্রতর করার মাধ্যমে দেশের আরও বহু অঞ্চলে আঘাত করবে।

তারপরও সরকার ভারতের শাসকগোষ্ঠী এবং দেশের লুটেতাদের স্বার্থে এ প্রকল্প নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে। প্রধান অতিথি আরও বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদনের বহু বিকল্প আছে, সুন্দরবনের কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু সেই সুন্দরবন অঞ্চল এখন দেশী-বিদেশী দস্যুদের লোভী আগ্রাসনের শিকার। বিভিন্ন দেশী-বিদেশী বাণিজ্যিকগোষ্ঠী ভূমিদস্যু জমি কিনে, জমির দাম বাড়াচ্ছে। এটাকেই বলা হচ্ছে উন্নয়ন। ৫০ লাখ মানুষের জীবন জীবিকা ধ্বংস করে ৫০ হাজারের কর্মসংস্থানের গল্প শুনিয়ে তাকেই বলা হচ্ছে উন্নয়ন। উপকূলীয় অঞ্চলের ৫ কোটি মানুষের জীবন ও সম্পদের জন্য হুমকি রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ সুন্দরবন বিনাশী সকল অপতৎপরতা বন্ধের আহ্বান জানান।

 

 

  Article "tagged" as:
  Categories:
view more articles

About Article Author

write a comment

0 Comments

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Add a Comment

Your data will be safe! Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.
All fields are required.