চুয়াডাঙ্গায় অপহরণের ৭ দিন পর দুই ছাত্রী উদ্ধার : প্রাইভেট শিক্ষক আটক

চুয়াডাঙ্গায় অপহরণের ৭ দিন পর দুই ছাত্রী উদ্ধার : প্রাইভেট শিক্ষক আটক
March 15 13:57 2017 Print This Article

চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা পাইলট স্কুল এ্যান্ড কলেজেরে ৯ম শ্রেণীর অপহৃত দু’ছাত্রী ৭দিন পর বন্দি অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশ। এসময় পুলিশ লম্পট প্রাইভেট শিক্ষক ফয়জুল ইসলামকে (৪৩) আটক করা হয়। আজ সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে আটক শিক্ষককে ও উদ্ধারকৃত দু’ছাত্রীকে আদালতে হাজির করা হয়েছে।

এঘটনায় এক ছাত্রীর পিতা বাদীহয়ে লম্পট শিক্ষক ফয়জুল, একই গ্রামের আনিছুর মাল ও দামুড়হুদার সদর ইউনিয়নের কাজী কুতুব উদ্দিনের নামে একটি অপহরণ শেষে জোর পূর্বক বাল্য বিয়ের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে। গ্রেফতারকৃত লম্পট শিক্ষক ফয়জুল দামুড়হুদা উপজেলার ফকিরপাড়া গ্রামের মৃত. মকছেদ মন্ডলের ছেলে।

পুলিশ ও অপহৃতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ৭ই মার্চ মঙ্গলবার সকালে দামুড়হুদা পাইলট স্কুল এ্যান্ড কলেজেরে ৯ম শ্রেণীর দু’ছাত্রী একই সাথে স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফেরেনি। ওই দিন দুই ছাত্রীর পরিবারের লোকজন তাদেরকে সাম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোঁজা খুঁজি করেও কোন সন্ধান মেলাতে না পেরে পরদিন ৮ মার্চ বুধবার দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন।

ডায়েরি করা হয়ে পুলিশ ছাত্রী দু’টিকে খুঁজে বের করতে দেশের সকল থানায় বার্তা পাঠানোর পাশা পাশি উদ্ধার অভিযান চালাতে থাকে।

এরই এক পর্যায়ে গত রোববার সন্ধায় এক ছাত্রী পালিয়ে বাড়ি ফিরে পরিবারের লোকজনকে জানায় তাদের নিখোঁজের রহস্য।

ওই ছাত্রীর কাছে বিস্তারিত শুনে পরিবারের লোকজন দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশকে বিষটি জানান। সংবাদ পেয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আবু জিহাদ এসআই বাকী বিল্লাহকে দ্রুত অভিয়ান চালিয়ে আসামী আটকসহ স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধারের নির্দেশ দেন। ওসির নির্দেশ পেয়ে এসআই বাকী বিল্লাহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সোমবার রাত একটার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেরা শহরের কানা পুকুরের কাছে জনৈক মনার বাড়ি ঘেরাও করে অভিযান চালিয়ে আটক স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করতে ও অপহরণের মূল নায়ক লম্পট প্রাইভের শিক্ষক ফয়জুলকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
উদ্ধারকৃত স্কুল ছাত্রী দু’জন জানায়, গত ৭ মার্চ মঙ্গলবার সকালে স্কুলে আসার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে দামুড়হুদা শহরের অদূরে পৌছায়। এমন সময় লম্পট শিক্ষক ফয়জুল তাদেরকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে চুয়াডাঙ্গা শহরের কানাপুকুর পাড়ার মনার বাড়িতে আটকে রাখে। পরে বিভিন্ন হুমকি ধামকি ও ভয় ভীতি দেখিয়ে নাবালিকা এক ছাত্রীকে বহুল আলোচিত কাজী বাল্য বিয়ে পড়ানোর অভিযোগে জেল যাওয়া ও ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা দেওয়া দামুড়হুদা সদর ইউনিয়নের কাজী গোবিন্দহুদা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক কুতুব উদ্দিনের কাছে নিয়ে ভূয়া জন্ম নিবন্ধন দিয়ে জোর পূর্বক বিয়ে করে।
দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ জানান, ভিকটিম উদ্ধারসহ মামলার প্রধান আসামী ফয়জুলকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অপরদিকে, ভিমটিম দু’ছাত্রীকেও ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধী রেকর্ড করতে সংশ্লিষ্ঠ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

view more articles

About Article Author

write a comment

0 Comments

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Add a Comment

Your data will be safe! Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.
All fields are required.