যুদ্ধাপরাধ: বাগেরহাটের ১৩ আসামির অভিযোগ আমলে

যুদ্ধাপরাধ: বাগেরহাটের ১৩ আসামির অভিযোগ আমলে
June 02 20:52 2017

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণের মত মানবতাবিরোধী অপরাধের সাত ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে এ মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে।

ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন গত ২৮ মার্চ এ মামলার আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করেছিল। বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল বুধবার তা আমলে নিয়ে ৭ অগাস্ট শুনানির পরবর্তী দিন ঠিক করে দেয়।

আদালতে প্রসিকিউশনের পক্ষে শুনানি করেন মোখলেসুর রহমান বাদল ও সাবিনা ইয়াসমিন মুন্নী। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী গাজী এম এইচ তামিম।

প্রসিকিউটর মুন্নী পরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এ মামলার ১৪ আসামির মধ্যে পাঁচজন গ্রেপ্তার ছিল। পরে মো. আব্দুল আলী মোল্লা নামে ৬৫ বছর এক আসামি গ্রেপ্তার অবস্থায় মরা যায়। আমরা ১৩ আসমির বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেছিলাম। আজ ১৩ জনের বিরুদ্ধেই ট্রাইব্যুনাল অভিযোগ আমলে নিয়েছে।”

আসামিদের মধ্যে খান আকরাম হোসেন (৬০), শেখ মোহম্মদ উকিল উদ্দিন (৬২), ইদ্রিস আলী মোল্লা (৬৪) ও মো. মকবুল মোল্লা (৭৯) কারাগারে আছেন। বুধবার তাদের ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

আর পলাতক খান আশরাফ আলী (৬৫), সুলতান আলী খাঁন (৬৮), মকছেদ আলী দিদার (৮৩), শেখ ইদ্রিস আলী (৬১), শেখ রফিকুল ইসলাম বাবুল (৬৪), রুস্তম আলী মোল্লা (৭০), মো. মনিরুজ্জামান হাওলাদার (৬৯), মো. হাশেম আলী শেখ (৭৯), মো. আজাহার আলী শিকদারকে (৬৪) গ্রেপ্তার করা গেল কি না, সে বিষয়ে পুলিশকে ৭ অগাস্ট অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

প্রসিকিউশনের তদন্ত সংস্থার প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল হান্নান খান গত ২২ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, এ মামলার আসামিরা মুসলিম লীগ ও পরে জামায়াতে ইসলামীর সমর্থক ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় তারা রাজাকার বাহিনীতে যোগ দিয়ে বিভিন্ন যুদ্ধাপরাধের লিপ্ত হন।

write a comment

0 Comments

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Add a Comment

Your data will be safe! Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.
All fields are required.