র‌্যাব-৬ কর্তৃক বাহিনীর প্রধান নাসিমসহ ৩ জন জলদস্যূ গ্রেফতার

র‌্যাব-৬ কর্তৃক বাহিনীর প্রধান নাসিমসহ ৩ জন জলদস্যূ গ্রেফতার
March 24 15:58 2017

 বিবিসি একাত্তর নিউজ- র‌্যাব তার প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই সমাজে বিশৃংখলা সৃষ্টিকারী, জলদস্যূ, অস্ত্র ব্যবসায়ী, ডাকাতি, কালোবাজারী, মানব পাচারকারী, মাদক ব্যবসায়ী, জঙ্গী ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ বজায় রেখেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি চৌকস আভিযানিকদল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, মোঃ এনায়েত হোসেন মান্নান, কমান্ডার, সিপিসি স্পেশাল এর নেতৃত্বে গত ২৩ মার্চ ২০১৭ তারিখ অনুমান ১৯.০৫ ঘটিকায় খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা থানাধীন চর ঝিনাইখালী গ্রামে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

উক্ত সময় নাসিমের নেতৃত্বে জলদস্যূগণ ডাকাতি করার প্রস্তুতি গ্রহণ করছিল। র‌্যাবের অভিযানে জলদস্যূ নাসিম বাহিনীর প্রধান নাসিম শেখসহ  ৩ (তিন) জন জলদস্যূকে ৩ (তিন) টি উন্নতমানের সাটার গান, ৮ (আট) রাউন্ড শটগানের তাজা কার্তুজ সহ গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাবের উপস্তিতি বুঝতে পেরে তাদের আরো কিছু সহযোগী পালিয়ে যায়।

উদ্ধারকৃত অস্ত্র সমূহ-

০১।    উন্নতমানের সাটার গান-৩ (তিন) টি।
০২।    তাজা কার্তুজ ৮ (আট) রাউন্ড।

গ্রেফতারকৃত আসামীগণ-

০১।     নাসিম বাহিনীর প্রধান নাসিম শেখ (৩৩), পিতা মৃত-সিদ্দিক শেখ, সাং-চর ঝিনাইখালী, থানা-বটিয়াঘাটা, জেলা-খুলনা।
০২।     মোঃ হাসান @ গলাকাটা হাসান (৩২), পিতা মৃত-আবু তালেব গাজী, সাং-তেতুলতলা, মহেশ্বরীপুর, থানা-কয়রা, জেলা-খুলনা।
০৩।     মোঃ জাহাঙ্গীর (২৫), পিতা-মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সাং-পাতাখালী, থানা-শ্যামনগর, জেলা-সাতক্ষীরা।

উল্লেখ্য যে, উক্ত জলদস্যূদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় খুন ও ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে। উক্ত বাহিনীর প্রধান শহিদুল দীর্ঘদিন জেলে থাকায় বাহিনীর নেতৃত্ব নাসিম শেখ গ্রহণ করে। উক্ত (০১) নাসিম  শেখ ইঞ্জিন নামক জনৈক ব্যক্তিকে হত্যা করে ধরা পরলে ০৮ (আট) মাস জেল খেটে বেরিয়ে পুনরায় ডাকাতি শুরু করে। (২) মোঃ হাসান @ গলাকাটা হাসান প্রথমে জলদস্যূ নান্নু বাহিনীর সাথে কয়রা থানার মহেশ্বরীপুর এলাকায় ডাকাতি, লুণ্ঠন ও মুক্তিপণ আদায়ের কাজ করিত এবং খাইনজে সরদার (৪০) নামক এক ব্যক্তিকে গুলি করে, গলা কেটে, হাত ও পা দুটি কেটে ধর আলাদা করে নদীতে ফেলে দেয় এবং উক্ত খাইনজে সরদারের ছেলে আজমীর সরদার (১২), কে গুলি করে নদীতে ফেলে দিলে, ছেলেটি (আজমীর সরদার) কোন ভাবে তীরে পৌছে দীর্ঘদিন যাবত চিকিৎসাধীন রয়েছে।

উক্ত ঘটনায় কয়রা থানার মামলা নং-০৪ তারিখ-০৫/১২/২০১৬ খ্রিঃ ধারা-৩০২/৩২৬/২০১ দঃ বিঃ এবং পুলিশ কর্তৃক খাইনজের হাত পা মাথা বিহীন শুধু ধর নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদের দলের কয়েক জন জলদস্যূ গ্রেফতার হলে আসামী গলাকাটা হাসান নান্নু বাহিনীর পরিবর্তে নাসিম বাহিনীতে যোগ দেয়। স্থানীয় তদন্তে আরো জানা যায় যে, আসামীগণ দীর্ঘদিন ধরে জলদস্যূ হিসেবে জেলে, কাকড়া জেলে, গোলপাতার ব্যবসায়ী ও সুন্দরবনের মধু সংগ্রহকারী মৌয়ালদের নৌকা ও জাহাজে থাকা মালামাল লুন্ঠন/ডাকাতি করিত ও জেলেদের জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়সহ অনেক লোককে হত্যা ও জখম করেছিল বলে জানা যায়।আসামীদের বিরুদ্ধে খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা থানায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

  Article "tagged" as:
  Categories:
write a comment

0 Comments

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Add a Comment

Your data will be safe! Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.
All fields are required.