স্বাস্থ্যমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠকের পরও কাজে ফেরেননি ইন্টার্ন চিকিৎসকরা

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠকের পরও কাজে ফেরেননি ইন্টার্ন চিকিৎসকরা
March 06 14:56 2017

bbc71news –স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে সমঝোতার বৈঠকের পরও কাজে ফেরেননি কর্মবিরতি পালনকারী ময়মনসিংহ, সিরাজগঞ্জ, সিলেট, রংপুর, রাজশাহীর ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

শাস্তি মওকুফের আশ্বাস দেওয়ার পরও কয়েকটি মেডিকেলের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তাদের কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। ওই মেডিকেল কলেজগুলো ইন্টার্ন চিকিৎসক নেতারা জানিয়েছেন, বগুড়া মেডিকেলের সাজা পাওয়া ৪ জনকে কাজে বহাল করার দাপ্তরিক প্রক্রিয়া শেষ হলেই তারা কাজে যোগ দেবেন। এদিকে ৫ দিন ধরে তাদের এই কর্মবিরতির পর আজ সোমবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসায় চিকিৎসক ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের প্রতিনিধিদের এক বৈঠকে ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে আজ দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য কর্মকর্তা পরীক্ষিৎ চৌধুরী জানিয়েছিলেন।

অবশ্য বৈঠকের পর স্বাচিপ সভাপতি ইকবাল আর্সলানও বলেছিলেন, মন্ত্রীর আশ্বাস পাওয়ার পর বিভিন্ন হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বলে তিনি খবর পেয়েছেন। তবে ময়মনসিংহসহ কয়েক জায়গায় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কাজে ফিরলেও বগুড়া, চট্টগ্রাম, খুলনাসহ বেশির ভাগ জায়গায় তারা কাজে ফেরেননি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার ঢাকায় বৈঠকের পর বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের মুখপাত্র কুতুব উদ্দিন বলেন, শাস্তি মওকুফের লিখিত চিঠি না পাওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হবে না। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন প্রত্যাহার করতে হবে, দোষীদের শাস্তি দিতে হবে এবং চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন, এসব ঠিকঠাক হওয়ার পর আমাদের ধর্মঘট কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হবে। তা না হলে ধর্মঘট চলবেই। আজ সন্ধ্যা ৬টায় আমাদের ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেষ হবে। সে পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। সন্ধ্যার পর দাবি পূরণ না হলে আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি দেওয়া হবে।

তবে ময়মনসিং মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা বেলা ২টার দিকে কাজে ফিরেছেন বলে জানান কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান সাইফুল বারী। খুলনা বিএমএর সভাপতি শেখ বাহারুল আলম বলছেন, শাস্তি প্রত্যাহার করে কাজে ৪ জনকে বহাল না করা পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। যারা ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন তারা মূলত বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছেন। একই ধরনের বক্তব্য পাওয়া গেছে চট্টগ্রাম ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রাশেদুল ইসলামের কাছ থেকে। তিনি বলেন, আমরা এখনও কেন্দ্রীয়ভাবে কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি। আজকের মধ্যে ধর্মঘট প্রত্যাহার হবে কিনা এ নিয়ে আমরা সন্দিহান। বিষয়টি পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে বলে তিনি জানান।

সিরাজগঞ্জের নর্থবেঙ্গল মেডিকেল কলেজ ইন্টার্ন অ্যাসেসিয়েশনের সভাপতি আশরাফুর ইসলাম শুভ্র বলেন, কেন্দ্র থেকে কোনো নির্দেশনা না আসায় আমরা এখনও কর্মবিরতি পালন করছি। একই কথা বলেছেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদ সভাপতি মুশফিক-উজ-জামান আকন্দ। রংপুর ও রাজশাহীর ইন্টার্ন চিকিৎসক নেতাদেরও বক্তব্য একই। তারা কাজে যোগ দেবেন কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত পাওয়ার পর। দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি আশফিকার রহমান শামস বলছেন, বগুড়ার ইন্টার্ন চিকিৎসক নেতারা যে সিদ্ধান্ত নেবেন তারা তাদের সঙ্গে একমত। তারা বগুড়ার কর্মসূচি অনুসরণ করবেন বলে জানান।

প্রসঙ্গত সিরাজগঞ্জ সদর থেকে বগুড়া হাসপাতালে এক রোগীর ছেলে ও দুই মেয়ে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মারধরের শিকার হলে ঘটনার সূত্রপাত। এই ঘটনার প্রায় ২ সপ্তাহ পর ২ ফেব্রুয়ারি ৪ ইন্টার্ন চিকিৎসককে শাস্তির ঘোষণা আসে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে। ওই ৪ জনের ইন্টার্নশিপ ৬ মাসের জন্য স্থগিত করা হয়।

write a comment

0 Comments

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Add a Comment

Your data will be safe! Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.
All fields are required.